ভালো আছেনতো!!


চায়ের কাপে চুমুক দিতে গিয়ে ঠোট কেঁপে কেঁপে উঠছে।
মনে অস্থিরতা, চোখে প্রচন্ড ঘুম। ২৩ বছরের যুবকের প্রতিটা সিগারেটের টানে কতটা ধোয়া আর কতটা যন্ত্রনা মিশে আছে কেউ জানেনা।

কিছু রিপোর্ট হাতে যুবক টং দোকানে বসে চোখ ভিজায়ে ফেলছে।
কিছুক্ষণ আগে মানুষটার হাতে কয়েকটা কাগজ ধরিয়ে দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হল তার ব্লাড ক্যান্সার ধরা পড়েছে।

আপনার কষ্টটা কাউকে বলতে পারছেননা?
অনেক ডিপ্রেশন আর ফ্রাস্টেশানে পড়ে ক্লান্ত হয়ে গেছেন? 
জিবনটা বোঝা লাগছে?
 বেচে থেকে শুধু শুধু কষ্ট পাবার কোন মানে নেই,তার চেয়ে ভাল মরে যাই,এই টাইপ একটা চিন্তা মাথায় ঘুরছে?
তাহলে একবার নিজেকে ২৩ বছরের ওই যুবকের জায়গায় বসিয়ে ভাবুনতো আসলে আপনি কতটা কষ্টে আছেন।কষ্টটা কিছুটা হলেও কমে যাবে আপনার।


হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে গিয়ে ৭০% পুড়ে যাওয়া মানুষটার সামনে দাড়িয়ে ভাবেন আপনি কতটা কষ্টে আছেন। নাকি আল্লাহ আপনাকে ভালই রেখেছেন। ভাবা যায় নিজের ৭০% পোড়া শরিরটা?

যেই যুবতিকে কিছু মানুষ ধরাধরি করে গর্ভাবস্থায় সরকারি হাসপাতালের বারান্দায় ফেলে রেখে গেছে, তারচেয়ে আপনার পছন্দের মানুষ হারানোর কষ্টটা বেশি?

মধ্যরাতে অনেক অসহায় লাগে নিজেকে?? বেশ কিছু মানুষ আছে, যারা জন্মথেকে থ্যালাসেমিয়া ভাইরাসে আক্রান্ত। প্রতি মাসে ২ থেকে ৪ ব্যাগ রক্তের দরকার হয় তাদের এবং আজিবন শরিরে রক্ত নিতে হবে।এত রক্ত তারা কোথায় পাবে!!

এর পরও আপনি অশান্তিতর আছেন? সময় করে একটু বস্তিতে( Slum) ঘুরে আসুন। হয়ত পুরো পুরি না ঘুরেই চলে আসবেন।

আল্লাহ আমাকে যে কতটা ভাল রেখেছেন তার জন্য শুকরিয়া। আলহামদুলিল্লাহ আমি ভাল আছি। আপনি ভাল আছেন কি?

***
লেখক: রাব্বি ইসলাম, ৯ম ব্যাচ ( ওয়েট প্রসেস ইঞ্জিয়ারিং)

No comments

ফটোগ্রাফি

  ছবি ঃ সমুদ্র বিলাস ছবি ঃ Triangle! ছবি ঃ প্রাণোচ্ছল  *** ছবিগুলো তুলেছেন ঃ মোঃ গুলজার আহমেদ সজীব  ৮ম ব্যাচ ***

Theme images by konradlew. Powered by Blogger.